Home / জাতীয় / জামায়াত শিবিরে সংস্কার হওয়া দরকার!!

জামায়াত শিবিরে সংস্কার হওয়া দরকার!!

জামায়াত শিবিরে সংস্কার হওয়া দরকার বৈকি !
.
খুব সম্ভবত ছিয়ান্নব্বই সালের শেষ দিকের ঘটনা। একদিন মধ্য রাতের কুয়াশাছন্ন শীতের রাতে এক ব্যক্তি আমার ব্যক্তিগত পড়ার রুমের (গ্রাম্য ভাষায় কাচারী বলা হয় যাকে) দরজা নক করলেন। কণকনে ঠান্ডার কারণে লেপ তোষকের ভিতরে মাথা গুজে থাকার কারণে প্রথম দিকে টের পাইনি।



.
বহু ডাকাডাকির পরে ঘুম ভেঙ্গে গেলো। বুঝতে পারলাম কেউ আমাকে ডাকছে। তখনকার সময় রাতের বেলা অপরিচিত কেউ ডাকলে দরজা খুলতে সময় নিতাম না। কারণ তখন পুলিশি ঝামেলা এত ছিলো না বললেই চলে। এখনতো মাঝ রাতে পুলিশ এসে নাম ধরে সুরেলা ভঙ্গিতে ডাকতে থাকে। মনে হয় আমার পেয়ারের দোস্ত আমাকে ডাকছে।
.
যাই হোক, দরজা খুলে দেখলাম আমার জোন সভাপতি হাজির। বললেন, রাতের বাকি অংশটা আপনার সাথে মসজিদে কাটাবো বলে চলে আসছি। কোন সমস্যা হবে ? বললাম, না সমস্যার কিছু নেই। দুজনে চলে গেলাম মসজিদে। তিনি হাফেজে কোরআন ছিলেন। আমাকে বললেন, আমার তেলাওয়াত শুনুন দেখুন ঠিক আছে কিনা। তিনি সুরা আহযাব তেলাওয়াত করছিলেন। আমাকে বললেন, অর্থ বলুন।
.
আমি সাদা মাঠা অনুবাদ করতে লাগলাম। তিনি বললেন, আসলে পর্দার এই আয়াতগুলো আপনাকে শুনানোর কারণ হলো, আমরা এই বিষয়ে খুব একটা তৎপর নই। যদি পর্দার আয়াতগুলো ভালো ভাবে আমলে আনা যায়, তাহলে প্রতিটি ইবাদতে মজা পাওয়া যায়। আমাদের বিভিন্ন সাথী ভাইদে একান্নবর্তি পরিবারে পর্দা করা খুব কঠিন কাজ তাই না ?
.
এতক্ষনে আমি বুঝে গেলাম এই আয়াত তেলাওয়াতের আসল হাক্কিকত। কোন কথা না বলে সেদিন আমি চুপ করে ছিলাম। কিন্তু আজকের এই পর্যায়ে এসে আমি কেবল ভাবছি, আসলেই তো ! পর্দা সম্পর্কিত এই আয়াতগুলো নিয়ে আমরা তো কেবল স্টাডি করছি। সাধারন কর্মীরা, নেতারা তাদের পরিবারে কতটা এপ্লাই করছে, কতটা আমলে নিয়েছে কে দেখছে এসব। এক প্রকার স্টাডি নির্ভর, তদারিক বিহীন কর্মী বাহিনীর যে প্রজন্ম আমরা গড়ে তুলছি তাতে কি সত্যিকারের ইসলামী আন্দোলনের মেরিট ঠিক রাখা যাবে ?
.
আজকে বিভিন্ন প্রকার হেন তেন সংস্কার, দাবি দাওয়া নিয়ে বিতর্ক হয় কিন্তু এসব গুরুত্ব্যপুর্ণ বিষয়গুলো নিয়ে কোন বিতর্ক হয় না, প্রস্তাবনাও আসে না। এসব ঘাটতি দেখে কোন নেতা আক্ষেপ করেছে মর্মে কোন আওয়াজ আমরা পাইনি। বলাবহুল্য, এরকম তদারকীর অভাবে, মুখলেস লোকদের সংস্পর্ষে যাওয়ার সুযোগ সীমিত হয়ে যাওয়াতেই নেতাকর্মীরা মানুষ শয়তান প্রপাগান্ডায় কান দিয়ে বিভ্রান্ত হচ্ছে। একদল রোবটিক, বিপ্লবী কর্মী তৈরি হচ্ছে যারা মডারেট ইসলামের আশ্রয় খুজতেছে। যেখান থেকে আওয়াজ আসতেছে, সেখানে তরী ভিড়াচ্ছে। এর থেকে উত্তরণের জন্য অবশ্যই জামায়াত শিবিরের ভিতরে সংস্কার করতে হবে।
.
তবে যারাই আজকে সংগঠনের ভিতরে বিভিন্ন ধরনের রাজনৈতিক, আদর্শিক সংস্কার প্রস্তাব নিয়ে এসেছে তাদের অধিকাংশের অবস্থা হচ্ছে এরা ব্যক্তি জীবনে ফরজ কিছু পালন করলেও পারিবারিক অঙ্গনে, বৃহত্তরে ক্ষেত্রে শরীয়াতের প্রেকটিস থেকে জোযন জোযন দুরুত্বে অবস্থান করছে। আমি ব্যক্তিগত ভাবে এমন বহু মানুষকে দেখেছি যারা কথায় কথায় জামায়াত শিবিরের সংস্কার, নেতৃত্বের ঝট, কোরামীং সহ বিভিন্ন ইস্যূতে সোচ্চার হয়ে সংগঠন থেকে বহু দুরত্বে অবস্থান করছেন। কিন্তু তাদের ব্যক্তি জীবন, পারিবারিক জীবনে এখন ইসলাম অপ্রাসঙ্গিক।
.



এরকম দু একজননের কারগুজারী আমি শুনাবো যাতে সাধারন কর্মীরা বুঝতে পারে যে, ভুল ধরা খুব সহজ কাজ। সংগঠনের ভুল ধরার আগে নিজের পা থেকে মাথা পর্যন্ত একবার পরখ করে দেখি যে, আমি কতটা ইসলামের ওপর আছি। আমার ভিতরে ইসলাম যদি অনুপস্থিত থাকে বা খন্ডিত থাকে, তাহলে সংগঠনের দায় নিয়ে এত মাথা ঘামানোর কি আছে ?

লেখক
অপু আহমেদ

Check Also

ক্বওমী শিক্ষকদের জীবন মান পরিবর্তন হবে কি? ইয়াসিন আমিন।

২০০২ সালে রাঙ্গুনিয়া খন্ডলিয়া পাড়া মাদরাসায় শিক্ষকতার মধ্য দিয়ে কর্ম জীবন শুরু। আটারো শ’পঞ্চাশ টাকা …

মিশরের সাবেক প্রেসিডেন্ট মুরসির মৃত্যুতে ছাত্রশিবিরের শোক।

মিশরে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত একমাত্র প্রেসিডেন্ট, বিশ্ব ইসলামী আন্দোলনের অন্যতম শীর্ষ নেতা ড. মুহাম্মাদ মুরসির ইন্তেকালে …

রামগঞ্জ ফেমাসে অপারেশনের রোগীর শরীরে গজ-কটন রেখেই রিলিজ।

রামগঞ্জে অপারেশন করার পর রোগীর শরীরে গজ-কটন রেখেই রোগীকে রিলিজ দিলেন উপজেলার পৌর শহরস্থ রামগঞ্জ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *