Home / Uncategorized / ডায়াবেটিস থেকে মুক্তি চান? পেঁপে পাতার রস খান।।

ডায়াবেটিস থেকে মুক্তি চান? পেঁপে পাতার রস খান।।

পেঁপের উপকারিতা

স্বাস্থ্য ডেস্ক : পেঁপের পুষ্টিগুণ সম্পর্কে কম বেশি আমরা সবাই জানি। পেঁপেকেই সব সবজির মধ্যে ঔষধী সবজি হিসেবে মানা হয়। তবে পেঁপের গুণাগুণ জানলেও এর পাতার যে গুণ রয়েছে সে সম্পর্কে সবারই অজানা থাকতে পারে। একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে শুধু ডেঙ্গু ভাইরাসকে মারতেই নয়, একাধিক রোগকে দূরে রাখতেও পেঁপে পাতার বিকল্প হয় না। হজম ক্ষমতার উন্নতির পাশাপাশি শরীরকে সব দিক থেকে বাঁচাতে বাস্তবিকই পেঁপে পাতা বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। পেঁপে পাতা আরো নানাভাবে শরীরের উপকারে আসে- চলুন দেখে নেয়া যাক সেগুলো:
১. ডেঙ্গু রোগকে দূরে রাখে: একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে যে নিয়মিত পেতে পাঁতার রস খেলে শরীরে প্লেটলেট কাউন্ট কমে যাওয়ার আশঙ্কা একেবারে কমে যায়। সেই সঙ্গে রোগ প্রতিরোধী ব্যবস্থাও খুব শক্তিশালী হয়ে ওঠে। আর একবার ইউমিন সিস্টেম শক্তিশালী হয়ে উঠলে ডেঙ্গু ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা একেবারেই থাকে না বললেই চলে।
২. ম্যালেরিয়া রোগকে প্রতিরোধ করে: পেঁপে পাতায় থাকা অ্যাসেটোজেনিন নামক অ্যান্টি-ম্যালেরিয়াল প্রপাটিজ শরীরে প্রবেশ করে শরীরকে এতটা শক্তিশালী করে তোলে যে ম্যালেরিয়া রোগ প্রতিরোধ করে।
৩. লিভারের কর্মক্ষমতা বাড়ায়: বেশ কিছু কেস স্টাডি করে দেখা গেছে পেঁপে পাতায় উপস্থিত একাধিক উপকারি উপাদান লিভারে থাকা টক্সিক উপাদান শরীরে থেকে বের করে দেয়। সেই সঙ্গে লিভারের কর্মক্ষমতা এতটা বাড়িয়ে দেয় যে নানাবিধ রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা হ্রাস পায়।


৪. হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটায়: পেঁপে পাতায় থাকা প্রোটিস এবং অ্যামিলেস নামক দুটি উপাদান হজমে সহায়ক পাচক রসের ক্ষরণ বাড়িয়ে দেয়। সেই সঙ্গে পাকস্থলি এবং কোলনের প্রদাহ কমানোর মধ্যে দিয়ে সার্বিকভাবে বাওয়েল মুভমেন্টের উন্নতিতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে নিয়মিত পেঁপে পাতার রস পান করেল এইচ পাইলোরি ব্যাকটেরিয়ারা মারা পড়ে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই পেপটিক আলসারের মতো রোগ আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা হ্রাস পায়।
৫. ডায়াবেটিসকে নিয়ন্ত্রণে রাখে: রক্তে বাড়তে থাকা সুগারের কারণে কি চিন্তায় রয়েছেন? তাহলে আজ থেকেই নিয়মিত পেঁপে পাতা খাওয়া শুরু করুন। কারণ এর মধ্যে থাকা বেশ কিছু উপকারি উপাদান ইনসুলিনের কর্মক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই দেহে শর্করার মাত্রা বাড়ার কোনও আশঙ্কা থাকে না।
আরও অনেক গুণ আছে এর।

Check Also

রামগঞ্জে এলোপাতাড়িভাবে কুপিয়ে ১জনকে হত্যা ৩জনকে আহত।

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার ভাটরা ইউনিয়নের নান্দিয়া পাড়া গ্রামে মহসিন হোসেন (২৬) নামের একজন কুখ্যাত সন্ত্রাসী …

ক্বওমী শিক্ষকদের জীবন মান পরিবর্তন হবে কি? ইয়াসিন আমিন।

২০০২ সালে রাঙ্গুনিয়া খন্ডলিয়া পাড়া মাদরাসায় শিক্ষকতার মধ্য দিয়ে কর্ম জীবন শুরু। আটারো শ’পঞ্চাশ টাকা …

ড.মুরসি জন্য দোয়ার আয়জন করে জামায়াতে ইসলামী।

ড. মুরসির শাহাদাৎ ইসলামী আন্দোলনের কর্মীদের প্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে – নূরুল ইসলাম বুলবুল বাংলাদেশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *